আমরাই ঝাড়গ্রামের ৯০ শতাংশ গ্রামপাঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করবো: পার্থ চ্যাটার্জী

 

 

খবর এইসময়, ঝারগ্রামঃ  রাত পোহালেই জঙ্গলমহল জুড়ে গ্রামপাঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন । তার ঠিক একদিন আগে পঞ্চায়েত নির্বাচনে জয়ী পার্থীদের নিয়ে ব্লক ভিত্তিক ভাবে একের পর এক করে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা করেন এবং সিদ্ধান্ত নেন নবগঠিত পঞ্চায়েতের কে প্রধান আর কে উপপ্রধান হবেন । এছাড়াও এদিন বিজেপির বেশ কিছু জয়ী প্রার্থী তৃণমূলে যোগদেন । আলোচনা শেষে পার্থ চট্টোপাধ্যায় দাবি করেন আমরা ঝাড়গ্রামের ৯০ শতাংশ গ্রামপাঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করবো । এদিনের আলোচনার প্রধান উদ্দেশ্য ছিলো প্রধান ও উপপ্রধান নির্বাচন । দলীয়সূত্রে জানাযায় , যে গ্রামপাঞ্চায়েতের প্রধান ও উপপ্রধান নির্বাচন হবে । সেই গ্রামপাঞ্চায়েতের নির্বাচিত প্রার্থীরা ও অঞ্চল সভাপতি মিটিং করে ব্লক সভাপতির কাছে নাম প্রস্তাব দিয়েছিলেন । তারই আজ পুনর্বিবেচনা করে ও জয়ী পার্থীদের মতামত নিয়ে পার্থবাবু গ্রামপাঞ্চায়েত গুলির প্রধান ও উপপ্রধান নাম ঘোষণা করেন । যে সকল গ্রামপাঞ্চায়েত গুলিতে সমস্যা ছিলো সেগুলি পার্থবাবু আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করেন ।

পঞ্চায়েত নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর কার্যত চোখের ঘুম উড়ে গিয়েছিলো তৃনমূলের । উত্থান হয়েছিলো গেরুয়া শিবিরের । অন্যদিকে বেলপাহাড়িতে আদিবাসী সমন্বয় মঞ্চের উত্থান । ঝাড়গ্রাম জেলার মোট ৭৯ টি গ্রামপঞ্চায়েতের মধ্যে তৃণমূল দখল নিয়েছিলো ৪১ টি ও বিজেপি ২৪ টি আদিবাসী সমন্বয় মঞ্চ ৩ টি টাই ছিলো ১১ টি । আজকের এই কর্মসূচির পর একাংশের মতে তৃণমূলের অঙ্কটা পরিবর্তন হতে চলেছে । গতকাল জামবনী ও লালগড় ব্লকের বোর্ড গঠন রয়েছে । নির্ধারিত তারিখে বিভিন্ন ব্লক গুলির বোর্ড গঠন চলবে ।

এদিন পার্থবাবু বলেন ত্রিস্তারের জয়ী দলের প্রার্থী এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে জঙ্গলমহলের উন্নয়নের স্বার্থে আমাদের দলে যারা আসার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে , তাদের সুদীর্ঘ সময়ে ধরে ধরে ব্লক ভিত্তিক সাংগঠনিক কথাবার্তা বলেছি । জঙ্গলমহলের শান্তি , সংহতি ও উন্নয়ন সেটাকে আরও উন্নতর করার জন্য জঙ্গলমহলের প্রত্যেকের কাছে আমরা আবেদন করছি । আমার এখনকার নব্বই শতাংশ গ্রামপাঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করছি । মানুষ আমাদের পাশে আছে ।