দিলীপভাষ্যে “রাজীব কুমার মমতার প্রাণভোমরা” রক্ষাকবচ হারা হয়ে “গ্রেফতার হওয়া অসম্ভব নয়”

 

মদনমোহন সামন্ত,13 সেপ্টেম্বর,কলকাতা : কলকাতা হাইকোর্ট রাজীব কুমারের গ্রেফতারির স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করেছে। ফলত প্রয়োজনে রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করতে সিবিআইয়ের আর কোনও প্রতিবন্ধকতা রইল না। সংশ্লিষ্ট বিচারপতি মধুমতী মিত্র জানিয়েছেন গ্রেফতারির উপর রক্ষাকবচ ধার্য হলে তা একপ্রকার তদন্তে হস্তক্ষেপের সমান । তিনি জানিয়েছেন তদন্তের স্বার্থে জেরা করা প্রয়োজন এবং তদন্তের প্রয়োজনে 41এ ধারা মোতাবেক নোটিস দেওয়া মানেই গ্রেফতার নয়। আজ শুক্রবার হাইকোর্টের এই রায়ের ফলে সিবিআই প্রয়োজনে যে কোনও সময় গ্রেফতার করতে পারে রাজীব কুমারকে। রায়দান শেষ হতে না হতেই বিকালে রাজীব কুমারের পার্ক স্ট্রিটের বাড়িতে পৌঁছায় সিবিআইয়ের আধিকারিক ব্রতীন ঘোষালের নেতৃত্বে একটি দল । সে সময় বাড়িতে ছিলেন না রাজীব কুমার । আগামীকাল তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছে । এর আগে রাজীব কুমারের আবেদনের ভিত্তিতে 30 মে হাইকোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চে বিচারপতি প্রতীক প্রকাশ ব্যানার্জি নির্দেশ দেন, আগামী একমাস অথবা পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বিধাননগর ও কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করতে পারবে না সিবিআই । তবে সারদা মামলার তদন্তে সিবিআইয়ের সঙ্গে রাজীব কুমারকে পূর্ণ সহযোগিতা করতে হবে । কলকাতার বাইরে যেতে বারণ ছিল । পাসপোর্ট সিবিআই অফিসে জমা রাখতে হয়েছিল। প্রতিদিন সিবিআই অফিসারের সামনে হাজিরা দিতে হচ্ছিল। সিবিআই-এর একজন অফিসার প্রতিদিন বিকালে তাঁর বাড়িতে গিয়ে হাজিরা নিয়ে আসতেন । প্রসঙ্গত, রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বললেন, “গ্রেফতার হওয়া অসম্ভব নয় । “আজ রাজ্য সদর দফতরে সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, “সিবিআইয়ের গ্রেফতার করার অধিকার আছে । সিবিআইয়ের কাছে এটা মর্যাদার লড়াই । রাজীব কুমারকে বাঁচানোর জন্য তাঁর বাড়ি চলে গেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী? এখন তাঁর কী হবে? রাজীব কুমার মমতার প্রাণভোমরা ।”